মাইক্রোসফট অফিস জনপ্রিয় একটি প্রোগ্রাম।

মাইক্রোসফট অফিস হচ্ছে বহুল আলোচিত ও জনপ্রিয় একটি প্রোগ্রাম।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Share on facebook
Share on linkedin
Share on twitter
Share on email

সারা বিশ্বব্যাপি ব্যবহৃত কম্পিউটার এপ্লিকেশনগুলোর মধ্যে মাইক্রোসফট অফিস হচ্ছে বহুল আলোচিত ও জনপ্রিয় একটি প্রোগ্রাম।
১৯৮৮ সালে বিল গেটস লাস ভেগাসে একটি প্রদর্শনীতে মাইক্রোসফট অফিসের কথা প্রথম ঘোষণা দেন। এটি অনেকগুলো প্রোগ্রামের সমন্বয়ে গঠিত হলেও বেশি ব্যবহৃত
প্রোগ্রামগুলো হচ্ছে – মাইক্রোসফট ওয়ার্ড ( Microsoft Word ), মাইক্রোসফট এক্সেল ( Microsoft Excel ) এবং মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্ট ( Microsoft PowerPoint ) ।
বছরের পর বছর ধরে এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি উন্নত করা হচ্ছে যেমন বানান শুদ্ধি করন, ভিসুয়াল বেসিক প্রগ্রাম্মিং-এর সংযোজন ইত্যাদি । বিশ্বের লক্ষ লক্ষ লোক মাইক্রোসফট অফিস ব্যবহার করে ।

মাইক্রোসফট অফিস (Microsoft Office) প্রোগ্রাম সংস্ক্ররণগুলি হচ্ছে অফিস ২০০০, অফিস ২০০৩, অফিস ২০০৭, অফিস ২০১০, অফিস ২০১৩, অফিস ২০১৬ এবং সর্বশেষ অফিস ২০১৯ ।
কম্পিউটার সম্পর্কে যাদের কোন প্রফেশনাল দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা নেই, তারা অনতিবিলম্বে ‘মাইক্রোসফট অফিস’ প্রোগ্রামটিতে ভর্তি হয়ে কম্পিউটার বিষয়ক সাধারন জ্ঞান অর্জন করতে পারেন।

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড : ব্যবহারকারীদের টেক্সট ডকুমেন্টস তৈরি করতে সাহায্য করে ।

মাইক্রোসফট এক্সেল : জটিল ডেটা / সংখ্যাসূচক স্প্রেডশীট গুলি সহজে তৈরি করে।

মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্ট : পেশাদারী মাল্টিমিডিয়া উপস্থাপনা তৈরির জন্য আবেদন অ্যাপ্লিকেশন ।

মাইক্রোসফট এক্সেস: মাইক্রোসফট এক্সেস উইন্ডোজের জন্য একটি ডেটাবেজ প্রোগ্রাম।
একটি ব্যক্তিগত তথ্য ম্যানেজার। উইন্ডোজ মেসেজিং, মাইক্রোসফট মেল এবং শিডিউল ++ এর প্রতিস্থাপক হিসেবে অফিস ৯৭ থেকে শুরু হয় ।
এতে ই- মেইল ক্লায়েন্ট , ক্যালেন্ডার , টাস্ক ম্যানেজার এবং ঠিকানা বই অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে ।

ইন্টারনেট এবং ই-মেইল ব্যবস্থাপনা, অনলাইন আবেদন, আউটসোর্সিং প্রাথমিক ধারণা ইত্যাদি ।

সাবস্ক্রাইব করতে মেইল লিখে পাঠান

আপডেট নিন এবং সেরাদের থেকে শিখুন

অন্যান্য আর্টিকেল