হার্ডওয়্যার কি? সফটওয়্যার কি?

হার্ডওয়্যার কি? একটা কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার হলো এর সেসব পার্টস বা অংশ যার একটা নিজস্ব শারীরিক গঠন কাঠামো রয়েছে এবং যা দেখা যায় ও স্পর্শ করলে এর অবস্থান স্পষ্টত অনুভব করা যায়।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Share on facebook
Share on linkedin
Share on twitter
Share on email

হার্ডওয়্যার কি?
একটা কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার হলো এর সেসব পার্টস বা অংশ যার একটা নিজস্ব শারীরিক গঠন কাঠামো রয়েছে এবং যা দেখা যায় ও স্পর্শ করলে এর অবস্থান স্পষ্টত অনুভব করা যায়।
একটা কম্পিউটার এর শারীরিক কাঠামো, পুরোটাই গঠিত হয় বিভিন্ন হার্ডওয়্যার দিয়ে।
যেমনঃ হার্ডডিস্ক, র্যাম, ডিভিডি-র‌্যাম মনিটর, মাউস,কেসিং, মাদারবোর্ড এসব কিছুই হার্ডওয়ারের অন্তর্ভুক্ত।

সফটওয়্যার কি?
হার্ডওয়্যার সম্পর্কে জানলাম, এখন সফটওয়্যার সম্পর্কে কার্যকরী ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করবো।
সফটওয়্যার বলতে কম্পিউটারের সকল প্রোগ্রামিং এর সমন্বয় এবং এদের ব্যবহার বা কার্যক্রম করানোকে বুঝায়।
এসব প্রোগ্রামের মাধ্যমে কম্পিউটার কে নির্দেশ দেওয়া হয় কখন কোন কাজ কীভাবে সম্পন্ন করতে হবে।
যেমনঃ অফিস অ্যাপ্লিকেশন, এডবি ইলাস্ট্রেটর, এডবি ফটোশপ, ইত্যাদি।

হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার কি জেনেছেন, এবার হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার এর পার্থক্য সম্পর্কে জানবেন।
যদিও হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার এর একে অপরের সান্নিধ্য ছাড়া কোন কম্পিউটার চলে না, তবুও ফাংশনাল এবং স্ট্রাকচারাল বেশ কিছু পার্থক্য এদের রয়েছে।
চলুন দেখি হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ কিছু পার্থক্য –
০১। হার্ডওয়্যার হলো সেই জিনিস যার শারীরিক অস্তিত্ব আছে এবং এটা ব্যবহার করা হয় সফটওয়্যার কে স্টোর করতে এবং সফটওয়্যার কে কাজ করাতে। অপরদিকে সফটওয়্যার এর কোন শারীরিক অস্তিত্ব নেই। বরংচ সফটওয়্যার হলো কিছু প্রগ্রামের সমষ্টি যেগুলো আপনার কম্পিউটার কে সক্ষম করে কোন বিশেষ এবং নির্দেশিত কাজ সম্পন্ন করতে।
| হার্ডওয়্যার সাধারণত ইনপুট, প্রসেসিং, স্টোরেজ,কন্ট্রোল এবং আউটপুট ডিভাইস ইত্যাদি রকমের হয়ে। থাকে আর সফটওয়্যার হচ্ছে, সিস্টেম সফটওয়্যার, প্রগ্রামিং সফটওয়্যার এবং এপ্লিকেশন সফটওয়্যার ইত্যাদি ধরনের।
| সফটওয়্যার এর ডেলিভারি সিস্টেম কাজ করার জন্য হার্ডওয়্যার এর দরকার হয়।সফটওয়্যার গুলা হার্ডওয়্যার এ ইন্সটল করা হয়,আর হার্ডওয়্যার গুলাও তখন কাজ করা শুরু করে যখন সফটওয়্যার গুলা হার্ডওয়্যার এ ইন্সটল বা লোড করা হয়।
০৪। যে কোন কম্পিউটার এর যে কোন হার্ডওয়্যার যে কোন মুহুর্তে চেঞ্জ বা পরিবর্তন করা যায় কিন্তু সফটওয়্যার চেঞ্জ করা যায় না, এর ডাটা তৈরী করা যায়, মডিফাই বা উন্নয়ন করা যায় অথবা মুছে দেওয়া করা যায়।
| হার্ডওয়্যার ফেইলিউর সাধারণত এলোমেলালো ভাবে হয়, এবং হার্ডওয়্যার এর এক্সপাইরি ডেট এর কাছাকাছি এসে এই ফেইলিউর গুলো অনেক বেড়ে যায়। কিন্তু সফটওয়্যার এর ফেইলিউর গুলালো অনেক সিস্টেমিক হয় তাছাড়া সফটওয়্যার গুলোর যেমন হার্ডওয়্যার এর মত কোন মেয়াদ উত্ত্বীর্ন তারিখ নেই তাই এদের ফেইলিউর গুলো বেড়ে যাওয়ার ও কোন আশংকা নেই।
৬। একটা নির্দিষ্ট সময় শেষে হার্ডওয়্যার গুলালো নষ্ট বা ড্যামেজ হয়ে যায়, কিন্তু সফটওয়্যার গুলালো একটা নির্দিষ্ট সময় শেষে আপডেট করে নিতে হয় শুধু।
। হার্ডওয়্যার গুলো স্পর্শ করা যায় এবং দেখাও যায়। অপরদিকে সফটওয়্যার দেখাও যায় না স্পর্শ ও করা যায়। ।
৷ কয়েকটি হার্ডওয়্যার, যেমন-সিডি, ডিভিডি- র‌্যাম, মনিটর, প্রিন্টার, ভিডিও কার্ড, স্ক্যানার, হার্ডডিস্ক, র্যাম ইত্যাদি। আবার কয়েকটি সফটওয়্যার যেমন-অফিস অ্যাপ্লিকেশন, এডবি ইলাস্ট্রেটর, এডবি ফটোশপ, ইত্যাদি।

সাবস্ক্রাইব করতে মেইল লিখে পাঠান

আপডেট নিন এবং সেরাদের থেকে শিখুন

অন্যান্য আর্টিকেল

মাইক্রোসফট অফিস

মাইক্রোসফট অফিস জনপ্রিয় একটি প্রোগ্রাম।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest